শনিবার, ১৯ সেপ্টেম্বর ২০২০, ০৭:৪৮ পূর্বাহ্ন

সংযোগ সড়ক না থাকায় কাজে আসছে না পৌনে ২ কোটি টাকার ব্রীজ

সংবাদদাতার নাম
  • প্রকাশ সময় : শনিবার, ১২ সেপ্টেম্বর, ২০২০
  • ১৪৮ দেখেছেন

এম.শাহীন আল আমীন ॥
সংযোগ সড়ক না থাকায় বকশীগঞ্জ -মেরুরচর সড়কের আউলপাড়া নামক স্থানে পৌনে ২ কোটি টাকায় নির্মিত ব্রিজটি জনসাধারণের কোন কাজেই আসছেনা। ফলে ১০টি গ্রামের মানুষ ভোগান্তি শিকার হয়ে আসছে। একই কারণে কর্মহীন হয়ে পড়েছে পরিবহন সেক্টরের শত শত শ্রমিক।
জানা গেছে,বকশীগঞ্জ উপজেলা সদর থেকে মেরুরচর গ্রাম হয়ে দেওয়ানগঞ্জ উপজেলার শেষ সীমানা ব্রম্মপুত্র নদী পর্যন্ত একটি পাকা সড়ক রয়েছে। ২০১৭ সালের বন্যায় ওই সড়কের আউলপাড়া নামক স্থানে ব্রীজটি ক্ষতিগ্রস্থ হয়। ২০১৮ সালের বন্যায় ব্রীজটি পুরোপুরো ভেঙ্গে যায়। ফলে বকশীগঞ্জ উপজেলা সদরের সাথে মেরুরচরসহ আশপাশের ১০টি গ্রামের সড়ক যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়ে।
পরে এলজিইডির অর্থায়নে ২০১৮ সালে উল্লেখিত স্থানে নতুন একটি ব্রিজের নির্মাণ কাজ শুরু হয়। ২২ মিটার দৈর্ঘ্য ব্রীজটির ব্যয় ধরা হয় ১ কোটি ৬৯ লাখ টাকা। ২০২০ সালে মাঝামাঝি সময়ে ব্রিজটির র্নিমাণ কাজ শেষ হয়। ব্রিজের নির্মাণ কাজ শেষ হলেও ব্রিজের দুই পাশের সংযোগ সড়ক র্নিমাণ করা হয়নি। দুই পাশের সংযোগ সড়ক না থাকায় বর্তমানে ব্রিজটি ব্যবহার করতে পারছেনা জনসাধারণ। ফলে মেরুরচর,ফকিরপাড়া, কলকিহারা,বাগাডুবা ও কাছিমারচর গ্রামসহ ১০ গ্রামের কয়েক হাজার মানুষ চরম ভোগান্তির শিকার হয়ে আসছে। একই কারণে নানা পরিবহন চলাচলেও দারুণ বিঘœ ঘটছে। পরিবহন চলাচল করতে না পারায় কৃষকরাও তাদের কৃষিপণ্য বেচাকেনার জন্য হাটবাজারে যাতায়াতে দুর্ভোগের শিকার হচ্ছে। তাই কৃষিপণ্যের ন্যায্য মূল্য পাচ্ছেনা চরাঞ্চলের কৃষকরা। বেকার হয়ে পড়েছে শত শত পরিবহন শ্রমিক।
এ ব্যাপারে উপজেলা প্রকৌশলী আমিনুল ইসলাম জানান, ব্রিজটির র্নিমাণ কাজ শেষ হলেও ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান কাজ বুঝিয়ে দেননি। ফলে দুই পাশের সংযোগ সড়ক নির্মাণ করা হয়নি। কাজ বুঝিয়ে দিলেই দ্রুত সময়ের মধ্যে সংযোগ সড়ক র্নিমাণ কাজ শুরু হবে।
এ ব্যাপরে বকশীগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী অফিসার আ.স.ম জামশেদ খোন্দকার বলেন, সমস্যাটি সমাধানের জন্য দ্রুত পদক্ষেপ নেওয়া হবে। আশা কুির স্বল্প সময়ের মধ্যে সমাধানও হবে।

জনস্বার্থে নিউজটি শেয়ার করুন -

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই ক্যাটাগরীতে আরোও সংবাদ
Copyright BY

themesba-lates1749691102