বুধবার, ০৫ অগাস্ট ২০২০, ০৪:২৫ অপরাহ্ন

আওয়ামীলীগের অভিযান।। কেন্দ্র থেকে উপজেলা

সংবাদদাতার নাম
  • প্রকাশ সময় : বুধবার, ২৯ জুলাই, ২০২০
  • ১০৭ দেখেছেন

শাহেদ করিম ও শারমীন জাহানরা যাদের হাত ধরে আওয়ামী লীগে প্রবেশ করেছেন অচিরেই তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে যাচ্ছে দলটি। আর দলের প্রতিটি উপ-কমিটিতে শুরু হচ্ছে চিরুনি অভিযান।

যাদের বিরুদ্ধে অনুপ্রবেশের সত্যতা মিলবে তাদেরকে দল থেকে বহিষ্কারের পাশাপাশি নেয়া হবে আইনি ব্যবস্থাও। আওয়ামী লীগের উপকমিটি ও সহ-সম্পাদক পদ নিয়েও ভেবে দেখার কথা জানান দলের নীতিনির্ধারকরা।

রিজেন্ট হাসপাতালের মালিক ও করোনার সনদ জালিয়াতির ঘটনায় আলোচিত শাহেদ করিম এবং নকল মাস্ক সরবরাহের দায়ে আটক অপরাজিতা ইন্টারন্যাশনালের কর্ণধার শারমীন জাহান এখন দেশের সবচেয়ে আলোচিত ইস্যু।

আর এ দুজনেরই রয়েছে ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগের রাজনীতির সাথে সংশ্লিষ্টতা। শাহেদ করিম আন্তর্জাতিক বিষয়ক উপকমিটির সদস্য এবং শারমীন জাহান মহিলা ও শিশুবিষয়ক উপকমিটির সদস্য ছিলেন। যদিও শাহেদ করিমের সদস্য থাকার বিষয়টি অস্বীকার করেছে দল।

এমন পরিস্থিতিতে বিব্রত আওয়ামী লীগ। বিশেষ করে রিজেন্ট হাসপাতালের চেয়ারম্যান শাহেদ করিম ও নকল মাস্ক কাণ্ডের শারমীন জাহানের ঘটনায় নড়েচড়ে বসেছে আওয়ামী লীগ। তাদের দুজনের সাথে দলের সংশ্লিষ্টতা থাকায় অনুপ্রবেশকারীদের বিষয়ে হার্ডলাইনে আওয়ামী লীগ।

আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আফম বাহউদ্দিন নাসিম বলেন, ‘যারা দলের ভাবমূর্তি নষ্ট করে নিজের স্বার্থ হাসিল করে এই ধরনের ব্যক্তিদের আওয়ামী লীগের পক্ষ থেকে কোনো ছাড় নেই।’

আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য অ্যাডভোকেট জাহাঙ্গীর কবীর নানক বলেন, ‘দলে অনুপ্রবেশকারীদের ছেঁকে ফেলা হবে।’

তারা আরো জানান, শুধু অনুপ্রবেশকারী নয়, যাদের মাধ্যমে তারা উপকমিটিতে জায়গা করে নিয়েছেন ব্যবস্থা নেয়া হবে তাদের বিরুদ্ধেও।

আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য অ্যাডভোকেট জাহাঙ্গীর কবীর নানক বলেন, ‘অনুপ্রবেশকারীদের কারা দলে প্রবেশ করালো তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা না নেওয়া হলে এরা সব জায়গায় ছড়িয়ে পড়বে।’

দলে অনুপ্রবেশ ঠেকাতে কেন্দ্রীয় কমিটি থেকে শুরু করে উপজেলা পর্যায়ে অভিযান পরিচালনা করবে আওয়ামী লীগ। শাহেদ করিম ও শারমীন জাহানরা যাদের হাত ধরে আওয়ামী লীগে প্রবেশ করেছেন অচিরেই তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে যাচ্ছে দলটি।

আর দলের প্রতিটি উপ-কমিটিতে শুরু হচ্ছে চিরুনি অভিযান। যাদের বিরুদ্ধে অনুপ্রবেশের সত্যতা মিলবে তাদেরকে দল থেকে বহিষ্কারের পাশাপাশি নেয়া হবে আইনি ব্যবস্থাও। আওয়ামী লীগের উপকমিটি ও সহ-সম্পাদক পদ নিয়েও ভেবে দেখার কথা জানান দলের নীতিনির্ধারকরা।

রিজেন্ট হাসপাতালের মালিক ও করোনার সনদ জালিয়াতির ঘটনায় আলোচিত শাহেদ করিম এবং নকল মাস্ক সরবরাহের দায়ে আটক অপরাজিতা ইন্টারন্যাশনালের কর্ণধার শারমীন জাহান এখন দেশের সবচেয়ে আলোচিত ইস্যু।

আর এ দুজনেরই রয়েছে ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগের রাজনীতির সাথে সংশ্লিষ্টতা। শাহেদ করিম আন্তর্জাতিক বিষয়ক উপকমিটির সদস্য এবং শারমীন জাহান মহিলা ও শিশুবিষয়ক উপকমিটির সদস্য ছিলেন। যদিও শাহেদ করিমের সদস্য থাকার বিষয়টি অস্বীকার করেছে দল।

এমন পরিস্থিতিতে বিব্রত আওয়ামী লীগ। বিশেষ করে রিজেন্ট হাসপাতালের চেয়ারম্যান শাহেদ করিম ও নকল মাস্ক কাণ্ডের শারমীন জাহানের ঘটনায় নড়েচড়ে বসেছে আওয়ামী লীগ। তাদের দুজনের সাথে দলের সংশ্লিষ্টতা থাকায় অনুপ্রবেশকারীদের বিষয়ে হার্ডলাইনে আওয়ামী লীগ।

আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আফম বাহউদ্দিন নাসিম বলেন, ‘যারা দলের ভাবমূর্তি নষ্ট করে নিজের স্বার্থ হাসিল করে এই ধরনের ব্যক্তিদের আওয়ামী লীগের পক্ষ থেকে কোনো ছাড় নেই।’

আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য অ্যাডভোকেট জাহাঙ্গীর কবীর নানক বলেন, ‘দলে অনুপ্রবেশকারীদের ছেঁকে ফেলা হবে।’

তারা আরো জানান, শুধু অনুপ্রবেশকারী নয়, যাদের মাধ্যমে তারা উপকমিটিতে জায়গা করে নিয়েছেন ব্যবস্থা নেয়া হবে তাদের বিরুদ্ধেও।

আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য অ্যাডভোকেট জাহাঙ্গীর কবীর নানক বলেন, ‘অনুপ্রবেশকারীদের কারা দলে প্রবেশ করালো তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা না নেওয়া হলে এরা সব জায়গায় ছড়িয়ে পড়বে।’

দলে অনুপ্রবেশ ঠেকাতে কেন্দ্রীয় কমিটি থেকে শুরু করে উপজেলা পর্যায়ে অভিযান পরিচালনা করবে আওয়ামী লীগ।

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই ক্যাটাগরীতে আরোও সংবাদ
Copyright BY

themesba-lates1749691102