মঙ্গলবার, ১১ অগাস্ট ২০২০, ১০:৫৯ অপরাহ্ন
শিরোনাম :

বকশীগঞ্জে অসহায় শতবর্ষী বৃদ্ধার সন্তানের দায়িত্ব পালন করছেন মানবিক ওসি সম্রাট

সংবাদদাতার নাম
  • প্রকাশ সময় : বৃহস্পতিবার, ২ জুলাই, ২০২০
  • ১০৫ দেখেছেন

মাসুদ উল হাসান ॥
যেখানে রক্তের সম্পর্ক থাকলেও মানুষ মানুষের খোজ রাখেনা। যেখানে নিজের সন্তান অনেক সময় বৃদ্ধ বাবা-মাকে খাবার দেয়না। রাতের অন্ধকারে বনে জঙ্গলে ফেলে আসে অসুস্থ্য বৃদ্ধ বাবা-মাকে। আবার অনেক উচ্চ শিক্ষিত অর্থ বিত্তের মালিকের বাবা-মাও থাকেন বৃদ্ধাশ্রমে। সেখানে অসহায় শতবর্ষী ভিখারিনী এক বৃদ্ধ মায়ের দয়িত্বভার নিজের কাঁধে তুলে নিয়েছেন বকশীগঞ্জ থানার মানবিক অফিসার ইনচার্জ (ওসি) শফিকুল ইসলাম সম্রাট। নিয়মিত খোজঁ খবর রাখেন অসহায় ওই বৃদ্ধা মায়ের। নিজ হাতে বাজার করে অসহায় বৃদ্ধা হাজেরা বেগমের বাড়িতে দিয়ে আসেন তিনি। গত বুধবার বাজার থেকে চাল-ডাল-আলু-তেল-চিনি-সাবান-ডিটারজেন্ট পাউডার-মুরগী,আপেল-কমলা-বিস্কুট-কলা-শুকনো খাবারসহ নানা খাদ্য সমাগ্রী কিনে নিজ হাতে অসহায় বৃদ্ধা হাজেরা বেগমের বাড়িতে পৌছে দিয়েছেন ওসি শফিকুল ইসলাম স¤্রাট। প্রতিমাসের ১ তারিখেই পুরো এক মাসের খাদ্য সামগ্রী দিয়ে আসেন তিনি। যাতে করে বৃদ্ধা হাজেরা বেগমের চলতে কোন প্রকার কষ্ট না হয়। এছাড়াও মাঝে মধ্যে স্বশরীরে গিয়ে এবং মোবাইল ফোনের মাধ্যমে নিয়মিত তার খোজঁ খবর রাখেন।
জানা যায়,হাজেরা বেগম। বয়য় ১০০ ছুইছুই। বকশীগঞ্জ উপজেলার বাট্টাজোড় মধ্য পলাশতলা সকাল বাজারের কাছাকাছি হাজেরা বেগম তার বোনের ভাংগাচোড়া রান্নাঘরে রাত কাটান। ছেলে মেয়ে, স্বামী বা আপন বলতে কেউ নেই। প্রায় ৪০ বছর আগে তার স্বামী মারা গেছে। এর পর থেকেই ভিক্ষাবৃত্তি করে জীবিকা নিবার্হ করেন। বয়স শত বছর ছুইঁ ছুইঁ। কিন্তু তার ভাগ্যে বয়স্ক ভাতা, বিধবাভাতা কিছুই জুটেনি। পাননি ভিজিএফ, ভিজিডিসহ সরকারি ত্রাণ সামগ্রী। কোন জনপ্রতিনিধির সু-নজরেও পড়েননি তিনি। করোনা পরিস্থিতিতে অসহায় হাজেরা বেগম বেশি সমস্যায় পড়ে যান।
গত প্রায় তিনমাস পূর্বে বকশীগঞ্জ প্রেসক্লাবের সভাপতি সিনিয়র সাংবাদিক এম শাহীন আল আমীন তাকে নিয়ে একটি প্রতিবেদন লিখেন। স্থানীয় দৈনিক গণজয় পত্রিকায় সংবাদটি প্রকাশ হওয়ার পরেই বিষয়টি স্থানীয় প্রশাসন ও জনপ্রতিনিধিদের নজরে আসে। তাৎক্ষনিক সহযোগীতার হাত বাড়ান ইউএনও আ.স.ম জামশেদ খোন্দকার,ওসি শফিকুল ইসলাম সম্রাট,ভাইস চেয়ারম্যান মাসুমা ইয়াছমিন স্মৃতি ও ভাইস চেয়ারম্যান জাহিদুল ইসলাম তালুকদার জুমান। পরবর্তীতে স্থায়ীভাবে অসহায় বৃদ্ধা হাজেরা বেগমের দায়িত্বভার গ্রহন করেন বকশীগঞ্জ থানার অফিসার ইনচার্জ শফিকুল ইসলাম সম্রাট। ঘোষনা দেন যতদিন বকশীগঞ্জ থানায় কর্মরত থাকবেন ততদিন ওই বৃদ্ধার দায়িত্বভার বহন করবেন তিনি। যেই কথা সেই কাজ। শত ব্যস্ততার মাঝেও প্রতিমাসের ১ তারিখেই পুরো মাসের বাজার করে হাজেরা বেগমের কাছে দিয়ে আসেন তিনি। এ যেনো মায়ের প্রতি এক দায়িত্ববান সু- সন্তানের কর্তব্য পালন। এতে করে হাজেরা বেগম আর ভিক্ষাবৃত্তি করেন না। কথায় আছে যার কেউ নেই তার আল্লাহ আছেন। ওই অসহায় মায়ের কাছে ওসি শফিকুল ইসলাম সম্রাটকে মানবতার দূত হিসেবে সৃষ্টিকর্তা পাঠিয়েছেন। রক্তের সম্পর্ক না থাকলেও মানুষ মানুষের জন্য এতকিছু করে বকশীগঞ্জ থানার মানবিক অফিসার ইনচার্জ শফিকুল ইসলাম সম্রাট তার দৃষ্টান্ত উদাহরন।

বকশীগঞ্জ থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি)শফিকুল ইসলাম সম্রাট বলেন,মানবিক কারনেই আমি অসহায় বৃদ্ধা মায়ের দায়িত্ব নিয়েছি। মানুষ মানুষের জন্য তাই এটা একজন মানুষ হিসেবে আমার দায়িত্ব বলে মনে করি। যতদিন বাচঁবো জনকল্যানে কাজ করে যাবো।

উল্লেখ্য,পুলিশ জনগণের জানমালের সার্বিক নিরাপত্তা নিশ্চিত করা সহ সেবার প্রত্যয় নিয়ে কাজ করে থাকেন। যদিও স্বাধীনতাত্তোর বাংলাদেশের পুলিশ কতটা জনগণের আস্থা অর্জন করতে পেরেছে এ নিয়ে অনেক বিতর্ক রয়েছে। কিছু কিছু পুলিশ কর্মকর্তার অপকর্মের কারণে পুলিশের ভাবমুর্তি মাঝে মধ্যে ক্ষুন্নও হয়। তবে পুলিশের এমন কিছু কর্মকর্তা রয়েছেন যারা নিজের সুবিধার কথা চিন্তা না করে অসহায় জনগণের পাশে গিয়ে দাড়ান। দেশ এবং জনগণের জন্য নিজেকে নিয়োজিত রাখেন। জীবনের ঝুকি নিয়ে জনসাধারণের জন্য কাজ করেন। এ ধরণের পুলিশ কর্মকর্তাদের কর্মকান্ডের কারণে জনগণ পুলিশকে পরমবন্ধু হিসাবে মূল্যায়ন করে থাকে। এমনই একজন পুলিশ কর্মকর্তা বকশীগঞ্জ থানারর ওসি শফিকুল ইসলাম সম্্রাট। যিনি নিজেকে কখনও ওসি হিসাবে নয়, জনগণের একজন সেবক হিসাবে অতিসাধারণ বেশে জনগণের পাশে থাকার চেষ্টা করেন। যোগদানের পর জনস্বার্থ ও মানবিক সংশ্লিষ্ট বেশ কয়েকটি কাজে তিনি স্থানীয় জনগণের কাছে প্রশংসিত হয়েছেন। তিনি সাধারণ মানুষের কাছে আস্থার প্রতীক এবং অপরাধীদের কাছে মূর্তিমান আতংক। ওসি সম্্রাটের ন্যায় দেশের প্রতিটি পুলিশ অফিসার সেবার এমন প্রত্যয় নিয়ে কাজ করে জনগণের পরমবন্ধু হিসাবে পরিচিতি লাভ করুক এমনটাই প্রত্যাশা সাধারণ মানুষের।

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই ক্যাটাগরীতে আরোও সংবাদ
Copyright BY

themesba-lates1749691102