সোমবার, ০৩ অগাস্ট ২০২০, ০৩:৫০ অপরাহ্ন
শিরোনাম :
সাংবাদিক দোলন বিশ্বাসকে হুমকি বকশীগঞ্জে মরাগরু জবাই।। ৬০ হাজার টাকা জরিমানা প্রধানমন্ত্রীর ঈদ উপহার থেকে বঞ্চিত হলো ইসলামপুরের ৭ শতাধিক পরিবার কাচপুর চাঁদাবাজি বন্ধে ও যানজট নিরসনে হাইওয়ে পুলিশ জিরো টলারেন্স ওসি মোজাফফর মালয়েশিয়ায় রায়হানের মুক্তির জন্য আদালতে লড়বেন ফরাসি আইনজীবী নারায়ণগঞ্জ সিটি প্রেসক্লাবের ঈদ উপহার রাজধানীর মিরপুরের পল্লবী থানায় বিস্ফোরণ আওয়ামীলীগের অভিযান।। কেন্দ্র থেকে উপজেলা সিদ্ধিরগঞ্জে পুলিশের অভিযানে ডাকাত ছিনতাইকারী মাদক ব্যবসায়ীসহ আটক-১২ সিদ্ধিরগঞ্জে ওমরপুর পশুর হাট নানা অনিয়মের অভিযোগ দুর্ভোগের সীমা নেই বিক্রেতাদের-উদাশিন ইজারাদার!

শতবর্ষী হাজেরা মহাখুশি।। ওসি সম্রাটের জন্য দোয়া ।। আমিও লোভি

সংবাদদাতার নাম
  • প্রকাশ সময় : মঙ্গলবার, ২ জুন, ২০২০
  • ২৪৩ দেখেছেন

সাদ্দাম হোসেন মুন্না ঃ অসহায় অচল হাজেরার বিষয়ে কথা হয় সিনিয়র সাংবাদিক এম.শাহীন আল আমীনের সাথে। সাংবাদিক এম শাহীন আল আমীন বলেন, দৈনিক ইত্তেফাক ও এশিয়ান টেলিভিশনের জন্য হাতির খবর সংগ্রহের জন্য গারোপাহাড়ে দিকে ছুটে যাচ্ছি। আমার সাথে আরেক সিনিয়র সাংবাদিক এসএম সালাম মাহমুদও ছিলেন। মোটর বাইকটাও তার । চালকের আসনেও সালাম। একটু দুর থেকেই আমার চোখে পড়ে এক শতবর্ষী মহিলা পাকা রাস্তা দিয়ে কষ্ট করে হাটছে। কাছাকাছি আসা মাত্র সালামে পিঠে হাত দিলাম। উদ্দেশ্য বাইক থামানোর জন্য। সালামকে বুঝতে দেওয়ার আগেই আমি নেমে ৩/৫ টা ছবি নিলাম স্বাভাবিক অবস্থায়। কারণ স্বাভাবিক ছবি আর ফটোসেশনের ছবি এক হয়না। তার পর শুরু হলো ফটো সেশন। আমিও তার সাথে ছবি উঠলাম। সালামও উঠলো।
শুরু হলো তার সাথে আলোচনা।
জিজ্ঞাস করলাম আপনার বয়স কত হবে ? উত্তরে বললেন ৪০/৫০ বছর হবে। পরের প্রশ্নের উত্তরে বললেন স্বামী মারা গেছে। কত বছর হলো মারা গেছে ? উত্তরে হাজেরা বললেন ৮০ বছর আগে স্বামী মারা গেছে। তার পর বিস্তারিত জানলাম। হাজেরার ছেলে মেয়ে কিছুই নেই। ঘরবাড়িও নেই। ভিটেমাটিও নেই। কোথায় থাকে ঠিকানাও বলতে পারেনা । আমি বুঝতে পারলাম ওনার কাছ থেকে আর কিছু উদ্ধার করা সম্ভব না। কাছাকাছি একটি বাড়ি। ধান মারাইয়ের কাছ করছেন। হাজেরাকে দেখিয়ে চিৎকার করে বললাম উনাকে চিনেন ? লোকটি হ্যাঁ বলাতেই আমি হাজেরাকে ছেড়ে দিলাম।
প্রথমেই লোকটির মোবাইল নম্বর নিয়ে নিলাম। কারণ হাতির খবর আমাকে তাড়া করছে। শুধু ভদ্র লোকটিকে বললাম হাজেরার বাড়ি ঘর চিনেন কি না। কোন খবর দিলে তাকে পৌছে দিতে পারবেন কি না। তিনি হ্যাঁ বলাতেই আমি ও প্রতিভাবান সাংবাদিক সালাম চলে গেলাম গারো পাহাড়ে।
পাহাড়ের কাজ শেষ করে ফিরলাম উপজেলা শহরের নিজ বাসায়। খবরের তাড়া শেষ করে হাজেরার তথ্য নেওয়ার পালা শুরু হলো।
বকশীগঞ্জ উপজেলার বাট্টাজোড় মধ্য পলাশতলা সকাল বাজারের কাছাকাছি হাজেরা বেওয়া বোনের ভাংগাচোড়া রান্নাঘরে রাত কাটান। ছেলে মেয়ে, স্বামী বা আপন বলতে কেউ নেই। প্রায় ৪০ বছর আগে স্বামী মারা গেছে। এর পর থেকেই ভিক্ষাবৃত্তি করে জীবিকা নিবার্হ করেন। বয়স শত বছর ছুইঁ ছুইঁ। কিন্তু তার ভাগ্যে বয়স্ক ভাতা, বিধবাভাতা কিছুই জুটেনি। ভিজিএফ, ভিজিডি, ত্রাণ হাজেরা বেওয়া পাননি। কোন চেয়ারম্যান মেম্বারের সু নজরেও পড়েনি হাজেরা।
লিখলাম এক স্লিপ। সুনজরে পড়লেন মানবিক উপজেলা নিবার্হী অফিসার আ.স.ম জামশেদ খোন্দকারের। আমাকে ফোন করে জানালেন আমি হাজেরার পাশে দাড়াতেঁ চাই। পরের দিন হাজেরাকে ডেকে এনে নানা খাদ্য সামগ্রী ও নগদ ৩ হাজার টাকা তুলেদেন অসহায় অচল বৃদ্ধা হাজেরার হাতে। বকশীগঞ্জ থানার ওসি আমাকে ফোন করে জানালেন হাজেরাকে সহায়তা করার জন্য। বকশীগঞ্জ থানার অফিসার ইনচাজ শফিকুল ইসলাম সম্রাট হাজেরার জন্য আমার হাতে ১০০০ টাকা তুলে দিয়ে বললেন আমি বকশীগঞ্জ থানায় যতদিন করমরত থাকবো ততদিন হাজেরার ভরন পোষনের দায়িত্ব নিলাম। শুরু হলো হাজেরার জীবন পরিবর্নের পালা। বকশীগঞ্জ উপজেলা পরিষদের সুযোগ্য পুরুষ ভাইস চেয়ারম্যান ছাত্রলীগের সংগ্রামি সভাপতি জাহিদুল ইসলাম জুমান হাজেরার জন্য একমাসের খাবারসহ নানা পণ্য সামগ্রী কিনে দেন। বকশীগঞ্জ উপজেলা পরিষদের মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান মাসুমা ইয়াসমিন স্মৃতি হাজেরার দেখাে শোনার দায়িত্বনেন।
দায়িত্বের অংশ হিসেবে বকশীগঞ্জ থানার অফিসার ইনচার্জ শফিকুল ইসলাম সম্রাট ১জুন আমার মাধ্যমে অসহায় হাজেরার বাড়ীতে জুন মাসের খোরাকি বাবদ চাল,তেল,লবন,মুড়ি,চিনি,ডাল,আলু, সেমাই,সাবানসহ নিত্যপণ্য পৌছে দিয়েছেন।
হাজেরার অসহায়ত্বের বিষয়টি আমি গণমাধ্যম তুলে ধরেছিলাম। তাই আমি ম্যাছিয়ার হিসেবে কাজ করেছি। ওই সহায়তায় আমার এক টাকাও নেই। আমি শুধু পণ্য গুলো বহন করে দিয়ে এসেছি। আমার লোভ একটাই দাতার সাথে আল্লাহ যদি আমাকেও কিছু দেয়। কারন আল্লাহর রহমতের ভান্ডার আনলিমিটেড। ওসি সম্রাটের জন্য দোয়া করবেন। বিচক্ষন সাংবাদিক এম এ সালাম মাহমুদও হকদার। হে মহান আল্লাহ তুমি ওই অসহায় অচল মহিলার পাশে সবাইকে দাড়ানোর তওফিক দান কর। আমীন।

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই ক্যাটাগরীতে আরোও সংবাদ
Copyright BY

themesba-lates1749691102